একুশ শতক এর পরিক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে। ফেসবুকে লাইক দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন।

সেপ্টেম্বরে আবার বৈঠকে বসছেন কিম ও মুন

উত্তর কোরিয়ার রাজধানী পিয়ংইয়ংয়ে আগামী সেপ্টেম্বরে তৃতীয় দ্বিপক্ষীয় সম্মেলনে বসতে রাজি হয়েছেন উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়া শীর্ষ দুই নেতা।

চির বৈরী দুই দেশের মধ্যে সম্প্রতি সম্পর্ক উন্নয়নের যে ইচ্ছা দেখা গেছে তারই ধারাবাহিকতায় উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উন এবং দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জে-ইন পিয়ংইয়ংয়ে এ সম্মলনে বসতে যাচ্ছেন। যদিও এখনও নির্দিষ্ট কোনো তারিখ ঘাষণা করা হয়নি।

এবারের বৈঠকটি পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়ার মধ্যকার অচলাবস্থা কাটানোর আশা নিয়েই হতে যাচ্ছে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মকর্তারা।

সাড়ে ছয় দশকের বৈরিতার অবসান ঘটিয়ে কোরীয় উপদ্বীপে শান্তি ফিরিয়ে আনতে গত এপ্রিলে সীমান্তবর্তী ‘যুদ্ধবিরতি’ গ্রাম পানমুনজমে বৈঠক করেন কিম ও মুন।

ওই বৈঠকে উভয় নেতা কোরীয় উপদ্বীপকে পারমাণু অস্ত্রমুক্ত করতে একসঙ্গে কাজ করার এবং একটি আনুষ্ঠানিক যুদ্ধবিরতি চুক্তিতে উপনীত হওয়ার ঘোষণা দেন।

যার ধারাবাহিকতায় সিঙ্গাপুরে জুনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে কিমের ঐতিহাসিক সম্মেলন হয়।

ওই সম্মেলনে কিম কোরীয় উপদ্বীপকে কিভাবে পরমাণু অস্ত্রমুক্ত করা যায় তা নিয়ে কাজ করার অঙ্গীকার করেন। বিনিময়ে ট্রাম্প দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে কোরীয় উপদ্বীপে যৌথ সামরিক মহড়া বন্ধের ঘোষণা দেন।

কিম ওই সম্মেলনের পর উত্তর কোরিয়ার পরমাণু ক্ষেত্র ধ্বংসের কাজও শুরু করেন।

কিন্তু সম্প্রতি মার্কিন গোয়েন্দা তথ্যে উত্তর কোরিয়া পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ কার্যক্রম নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করা হয়েছে। বলা হচ্ছে, দেশটি অতি গোপনে ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

আর তাই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করতেই কিম ও মুনের এ তৃতীয় বৈঠক। যদিও এপ্রিলে পানমুনজমের বৈঠকেই দুই নেতা শরতে উত্তরের রাজধানীতে ফের দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে বসার বিষয়ে একমত হয়েছিলেন। কিন্তু তার আগেই মে মাসে তারা আকস্মিক বৈঠক করেন।

সর্বশেষ আপডেট: ১৪ আগস্ট ২০১৮, ০৯:২০
অনলাইন ডেস্ক

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে একুশ শতক

সর্বশেষ আপডেট

বিনোদন